কেমন আছেন?

অবয়বের ময়নাতদন্ত

"ইশ! তোর একটা ভুড়ি হয়েছে দেখছি!"

"এই বাট্টু, এদিক আয়!"

"ওই ছেলেটা কার সাথে প্রেম করে দেখছিস? মেয়েটা কি কালো !!"

উঠতে-বসতে এ কথাগুলো আমরা হয় বলছি, নতুবা শুনছি। কখনো হেসে উঠছি, কখনো আবার খারাপ লাগলেও মেনে নিচ্ছি। কখনো কি নিজেকে প্রশ্ন করে দেখেছেন, আমি মানুষকে বিচার করার কে? বা কারো সৃষ্টিকর্তা প্রদত্ত অবয়ব নিয়ে সমাজকে কথা বলার অধিকার আদৌ কি আছে? অপরকে নিয়ে আমাদের যে পরিমাণ চিন্তা, নিজেকে নিয়ে তার অর্ধেকও খেয়াল আছে কি?

সমাজের এক অদৃশ্য তীরের নাম Body Shaming; যাতে অনবরত আমরা অপরকে ঝাঁঝরা করছি, কখনো নিজে বিদ্ধ হচ্ছি।

এখন প্রশ্ন হলো, কিভাবে নিজে এমন পরিস্থিতি এড়িয়ে চলা যায়?

প্রথমেই বুঝতে হবে যে, ব্যাপারটা অন্যায়। হয়ত বলবেন, তবে কি বন্ধুদের নিয়ে ঠাট্টা করা অপরাধ? না, তা নয়; কিন্তু এমন উপহাস করা ঠিক নয়, যা কাউকে কষ্ট দেয়। আপনি এই বিদ্রুপ পরিহার করলে হয়ত আপনার নাম হবে 'ক্ষ্যাত'! কিন্তু, সঠিক-বেঠিকের লাইনের সীমারেখা আপনার হাতে।

দ্বিতীয়ত, আপনার সাথে কেউ উপহাস করলে, বুঝতে শিখুন, উনি ভুল, আপনি না! অন্যের কথায় নিজেকে কখনো ছোট ভাববেন না। এটা অবশ্যই সহজ নয়, কিন্তু এই কঠিক কাজটা নিজের জন্য আপনাকে করতে হবে। এর পাশাপাশি নিজের কাজগুলোও করতে পারেন -

~ নেতিবাচক মানুষকে avoid করুন

~ তাকে খুলে বলুন যে আপনার কষ্ট হচ্ছে

~ নিজের অনুভূতি ব্যক্ত করতে শিখুন, চুপ করে থাকা সর্বদা সমাধান না

~ নিজেকে ভালবাসুন, আপনি কোটিতে একজন!

~ হতাশাবোধ কাটাতে মানসিক স্বাস্থ্যের কোন প্রফেশনালের সাহায্য নিন

মনে রাখবেন, আপনার তুলনা শুধুই আপনি! কেউই স্বয়ংসম্পূর্ণ নয়, সবারই দুর্বলতা আছে। আজ আমি কারো খুঁত নিয়ে উপহাস করলে, কাল আমার দোষও অগোচর রবে না।

fascinated 0 Readers
informed 0 Readers
happy 0 Readers
sad 0 Readers
angry 0 Readers
amused 0 Readers

Appointment

01763438148